Know your “true” destiny TODAY!

jyotishastrologyfreehoroscopetodayhoroscopematchmakingshaadigunmilanbengalimatchmakingfree-hereiswhatyouwillgetredarrows

super horoscope super horoscope super horoscope astrology free predictions today order your astro combo reports know your destiny today The Super Horoscope concentrates on the minutest aspects of life, bringing your entire life to you in a nutshell. The report will highlight the important events of your life and the course they take. Describing your general personality, appearance and well being, the LifeSign Super Horoscope report will also highlight factors such as wealth, education, career, family members, marriage and obstacles etc. The 'parihara' or remedial actions suggested in the report will help you set right the course of your life.

free horoscope today free horoscope matchmaking astrology combo reports pack bengali shaadi zodiac signs daily horoscope prediction free shani sade sati remedy Shani sare sati cheap easy remedy remedies auspicious muhurtam muhurta inauspicious muhurtam free today time

jyotish astrology horoscope matchmaking horoscope prediction today free bengali matrimony gun milan sree anik goswami tapan haureet subhash shastri jai mata di

Free Horoscope today Jyotish Astrology Horoscope matchmaking Shaadi Gun milan, Order your Astro Combo Reports, include free horoscope today day to day detailed analysis for full life horoscope prediction with Gem remedy and Numerology remedial suggestions for you

Jyotish Astrology Free Horoscope today Predictions & Horoscope matchmaking with Shaadi gun milan free bengali match making

free horoscope today free horoscope matchmaking astrology combo reports pack bengali shaadi zodiac signs daily horoscope prediction free shani sade sati remedy Shani sare sati cheap easy remedy remedies auspicious muhurtam muhurta inauspicious muhurtam free today time

Keep on reading to understand why you should click here to order your Astro Combo Pack NOW! 

jyotish astrology horoscope matchmaking horoscope prediction today free

Jyotish Astrology Horoscope Today!

jyotish astrology horoscope today shaadi marriage horoscope matchmaking guna milan bengali matrimony gon milan http://jyotishastrologyhoroscopetoday.com Dr Anik Goswami Anirban Kar

সঠিক প্রতিকারে সৌভাগ্যলাভ

এই ওয়েবসাইটে আসবার জন্য সর্বপ্রথমে আমরা আপনাকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা এবং ধন্যবাদ।

বর্তমান সময়ে আমরা প্রত্যেকেই নিজ নিজ জীবনে দৈনন্দিন কাজকর্ম নিয়ে খুবই ব্যাস্ত।

আমরা প্রত্যেকেই প্রতিনিয়ত আপ্রাণ প্রচেষ্টা করে চলেছি নিজের এবং নিজের পরিবারের প্রিয় মানুষদের সুখে রাখতে।
এবং সেই কাজটি করতে গিয়ে আমরা প্রতিনিয়ত আমাদের আশেপাশের সবকটি মানুসের সঙ্গেই পাল্লা দিচ্ছি জীবনের প্রতিটি বিষয়।

আমরা যে প্রতিদিন শুধুমাত্র অফিসেই সহকর্মীর সঙ্গে উন্নতির জন্য এবং মোটা বেতন বাড়ার জন্য লড়াই করি তাই নয়, আমরা প্রতিনিয়ত পাল্লা দেই জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে, তা সে সামাজিক ক্ষেত্র হোক অথবা পারিবারিক ক্ষেত্র।

জীবনের সমস্যাপূর্ণ সময় আমরা সকলেই জানতে চাই যে আগামী দিনগুলিতে আমাদের ভাগ্যে ভগবান কি লিখে রেখেছেন। কারণ আমরা যদি আজকেই জানতে পারি যে আগামী দিনে আমাদের জীবন কামন হতে পারে, তাহলে আমরা আজ থেকে সেই ভাবে নিজেদেরকে প্রস্তুত করতে পারি এবং একটি সুখি জীবন কাটাতে পারে। শুধু তাই নয়, আগামিদিনে কোন সঙ্কট আসছে কিনা সেটা জানা থাকলে আমরা আজ থেকেই তার  মোকাবিলা করবার জন্যে প্রস্তুত হতে পারি যাতে আগামিদিনের  সঙ্কটের সময় আমরা সঠিক ভাবে কম ঝামেলায় জীবন কাটাতে পারি।

কিন্তু যেহেতু ভগবান কে হাতের কাছে পাওয়া যায়না তাই আমরা নিজেদের ভাগ্য জানবার আশায় জ্যোতিষের উপর বিশ্বাস করি ও জ্যোতিষীর দ্বারস্থ হই।

জ্যোতিষী যদি সথ ভদ্র এবং সত্য শিক্ষিত হন, তাহলে তিনি সঠিক ভাবে যথাযথ সময় নিয়ে বিজ্ঞ্যানভিত্তিক উপায়ে হিসাব করে অতি বিশদে আপনার সঠিক ভাগ্য বিচার করবেন এবং আপনার সঠিক ভাগ্যচক্র এমনকি কোন সময় কি হবে তাও বলে দিতে সক্ষ্যম হবেন ও লিখেও দেবেন। তিনি কেন আপনার ভাগ্য লিখছেন ভাল অথবা খারাপ, সেটাও তিনি যুক্তি দিয়ে বিজ্ঞ্যানভিত্তিক উপায়ে লিখে দেবেন। সৎ শিক্ষিত জ্যোতিষী কখনই আপনার সব সমস্যা মিটিয়ে দেবেন অথবা আপনার ভগবানের দেওয়া ভাগ্য পাল্টে দেবেন বলে মিথ্যা দাবী করবেন না, কারণ ভগবান নিজে ছাড়া আপনার এই জীবনের ভাগ্য কোন মানুষ কখনই পালটাতে পারবেন না।

আমরা ঠিক এই ধরনের জ্যোতিষ গুরুর আনুগামী ছাত্র। তাই আমরা এই ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে আপনাকে জ্যোতিষ ও তন্ত্র সাধনার সঠিক দিকগুলোর অনুসরন করতে সাহায্য করছি। এবং বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গে ঘটে চলা বেশ কিছু ভণ্ড তান্ত্রিক জ্যোতিষীর ভণ্ডামি ও লক ঠকানোর হাত থেকে কিভাবে বাঁচবেন তার উপায়ও বলে দিচ্ছি। আমাদের অভিজ্ঞ্যতাকে কাজে লাগিয়ে আপনি নিজের সঠিক ভাগ্য জেনে নিয়ে সুখি জীবনযাপন করতে পারেন এবং আপনার মূল্যবান টাকাপয়সার অপচয় থেকে বাঁচতে পারেন।

আমাদের অনুরোধ আপনি প্রথমে এই ওয়েবসাইটের আলোচনাটি পড়ুন, নিজে ভাবুন ও আপনার নিজের বাস্তব অভিজ্ঞতার সঙ্গে মেলানতারপর যদি আপনি মনে করেন যে আমরা সঠিক কথা বলছি, তখন দেরি না করে আজই আমাদের জ্যোতিষ ভাগ্যফল order করুন এবং ৬০ পাতার বিশদে লেখা আগামী ৬০ বৎসরের আপনার ভাগ্যের গতি জানুন, এবং সেই মতন আগে থেকেই প্রস্তুত থাকুন ও সুখে জীবন কাটান। (আপনার ভাগ্যফলের বিবরণ ৬০ বৎসরের বেশি অথবা কম হবে আপনার ভগবান প্রদ্দত্য জীবন আয়ুর উপর ভিত্তি করে।)

এবারে আসুন আপনাকে কয়েকটি বাস্তব উদাহরণের মাধ্যমে দ্যাখাই বর্তমানে কিভাবে ভণ্ড তান্ত্রিক ও জ্যোতিষীরা বিভিন্য ছদ্দনামের  আড়ালে কিভাবে আপনার আমার মতন সমস্যা জর্জরিত মানুষকে ঠকায়।

সর্বপ্রথমেই আপনাকে একটা প্রশ্ন করি। আচ্ছা, আপনি কি নীচে লেখা লোকটানা কথাগুলির সঙ্গে পরিচিত?

> “তন্ত্র মন্ত্র কথা বলে যার রত্নে কিবা প্রয়োজন তার।”

> “ভয় কিরে পাগল, আত্মহত্যার আগের মুহূর্তে আমি আছি।”

> “বশীকরণ মাত্র ১ দিনে, লিখিত কন্ট্রাক্টে কাজ। তান্ত্রিক জ্যোতিষ অমুক শাস্ত্রী।”

> “মানব কল্যাণে “শ্রী গৌর অঙ্গ”। জ্যোতিষ তন্ত্র জগতে ১ মাত্র শ্রী “গৌর অঙ্গ” লিখিত ছুক্তিতে কাজ হবার পরে প্রতিকারের মূল্য নেন।”

> “বহু বৎসরের অভিজ্ঞ্য তন্ত্র জ্যোতিষী মহারাজ “শ্রী ভোলানাথ শাস্ত্রী”। সমস্যার সমাধানে আজও সাফল্যের শীর্ষে (বহু প্রমাণিত)।”

> “মায়াবী পিশাচ তন্ত্রে তীব্র বশীকরণ, বিদ্যা, ব্যাবসা, বিচ্ছেদ সহ যে কোন সমস্যার সমাধানে তান্ত্রিক জ্যোতিষ “শ্রী সুজ শাস্ত্রী”।”

> “ধুমাবতী তন্ত্রে আমরণ বশীকরণ। জন্মসময় তারিখ ছাড়া বিচার।”

> “২৪ ঘণ্টায় সুফল। বশীকরণ, শত্রুনাশ, ব্যাবসা, আর্থিক উন্নতি, মামলা, চাকুরী, বাস্তদোষ সমস্যায় ১০০% গ্যারান্টিসহ কাজ। তান্ত্রিক জ্যোতিষ শ্রী অমুক ভারতী।”

> “সমস্যায় না শব্দ নেই। শ্মশান তন্ত্রে বশীকরণ তন্ত্রগুরু শ্রী কৌশিকী শাস্ত্রী। ১৮ বছরেও কেউ প্রতারিত হয়নি।”

> “প্রাচীন মায়াবী তন্ত্রে ১০০% বশীকরণ, বি বি আচার্য।”

> “বাকসিদ্ধ মাতৃসাধক জ্যোতিষী। বশীকরণ স্পেশালিষ্ট, গ্যারান্টিসহ সকল কঠিন সমস্যা সমাধানে সিদ্ধ্যহস্ত, বিফলে মূল্য ফেরত, কলিকাতা ও সব জায়গায়।”

> “১০০% গ্যারান্টি দিয়ে সলমানী হিন্দু তন্ত্রে মাত্র ২৪ ঘণ্টায় বশীকরণ, বিচ্ছেদ এবং যে কোন জটিল সমস্যা সমাধানে তান্ত্রিক মুস্তাকালি।”

> “১০০% গ্যারান্টিসহ বশীকরণ, যে কোন সমস্যায় সিদ্ধ্যহস্ত, মুসলিম তান্ত্রিক এম হোক। বিফলে মূল্য ফেরত”

> “চারটি জিনিষ মাথায় রাখলে ঠকবেন না। জ্যোতিষীকে নিজের জন্ম তারিখ বলবেন না, নিজের সমস্যা বলবেন না, হাত দেখাবেন না ইত্যাদি… সব তিনি বলবেন।”

> “প্রেমে পাগল করা বশীকরনে শ্রেষ্ঠ তান্ত্রিক, যে কোন কঠিন সমস্যায় “সঞ্জয় শাস্ত্রী।”

> “দেখামাত্র বশীকরণ।”

> “মাত্র ৫ মিনিটে বশীকরণ, লিখিত কন্ট্রাক্টে কাজ।”

best astrologer in naihati best astrologer in kolkata best astrologers in kolkata best astrologers in naihati best astrologers in barrackpore best astrologer in bandel best astrologer The Super Horoscope concentrates on the minutest aspects of life, bringing your entire life to you in a nutshell. The report will highlight the important events of your life and the course they take. Describing your general personality, appearance and well being, the LifeSign Super Horoscope report will also highlight factors such as wealth, education, career, family members, marriage and obstacles etc. The 'parihara' or remedial actions suggested in the report will help you set right the course of your life.


যেমন ধরুন, আপনি প্রচণ্ড পরিশ্রম করছেন আপনার সাধ্য মতন যাতে আপনার মেয়েটি একটি ভাল নামি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে পরাশুনা করতে পারে, কারন আপনি বেশ ভাল জানেন যে বর্তমান চাকুরীর বাজারে পাল্লা দিয়ে ন্যুনতম ভাল বেতনের চাকুরী পাবার জন্য এটি অতি অবশ্য দরকার। এবার বাস্তবে দেখা যাচ্ছে যে অনেক ক্ষেত্রেই আপনার মেয়েটি অনেক মনযোগ দিয়ে পড়াশুনা করেও পাশের বাড়ির পোদ্দার বাবুর মেয়ে রিয়াকে কিছুতেই হারাতে পারছে না, অথচ রিয়া খুব কিছু একটা পরিশ্রম না করেই আপনার মেয়ের থেকে প্রতি বছর অথবা প্রতি ত্রিমাসিক পরীক্ষাতে বেশি ভাল ফল করছে, আর এই হার মানাটা আপনার এবং আপনার সহধর্মিণীর কাছে ক্রমাগত অসহ্য হয়ে উঠছে, কিন্তু আপনি যেহেতু চেষ্টার কোন ত্রুটি রাখেননি তাই আপনারা বুঝতেই পারছেন না বারংবার একি ফলাফলের কারণটি কি?

ঠিক এই সময় আপনার স্ত্রীকে পাশের বাড়ির সবিতা বলল যে, এই জটিল সমসস্যার এক অতি সহজ সমাধান আছে যেটি তার মামাতো দিদির মেয়ের একটা বড় সমস্যার সমাধান করতেও কাজে লেগেছে। মামাতো দিদির মেয়ে পারার একটি বাজে ছেলের খপ্পরে পরে গিয়েছিল, এমনকি তাদের মদ্ধ্যে শারীরিক সম্পর্কও হয়েছিল, অতএব সমস্যা বেশ জটিল ছিল। গোদের উপর বিষফোঁড়ার মতন সেই ছেলের বাবা আবার পারার মস্ত মস্তান এবং নেতার ডানহাত। বোঝাই যাচ্ছে সমস্যা কতটা জটিল।

সবিতার কাছ থেকে আপনি ও আপনার স্ত্রী জানতে পারলেন যে শ্রী হরি নারাণ বাবু (নাম পরিবর্তিত) একজন অতি গুণী ব্যক্তি এবং অতি বড় মাপের একজন তান্ত্রিক যিনি এই ঘোর কলিকালে সবরকম ভোগ সর্বস্ব জীবনযাপন করেও অতি সহজেই যে কারও যে কোন রকমের সমস্যার সমাধান করতে পারেন।

উনিই সেই কল্কী রুপী ভগবান যিনি অতি সহজেই মাত্র কয়েকদিনের মধ্যে সবিতার মামাতো দিদির মেয়ের সঙ্গে পাড়ার বাজে ছেলেটির (যার সঙ্গে দিদির মেয়ের শারীরিক সম্পর্ক বেশ গাড় ছিল!) বিচ্ছেদ করিয়ে দিয়েছেন শুধুমাত্র তন্ত্রের প্রয়োগে।

এই খবর জানামাত্র আপনাদের মন খুশিতে ভরে গেল, কারণ আপনাদের এত দিনের পূজা অর্চনা সফল হতে চলেছে … কারণ আপনারা এই ঘোর কলিকালে সাখ্যাত ভগবানের সঙ্গে শশরীরে দেখা করতে চলেছেন সামনের শনিবারে, কারণ এই কল্কী ভগবান শুধুমাত্র সপ্তাহে দুই দিন আপনাদের পাড়ার চেম্বারে বসেন। (পুরাকালে অবশ্য ভগবানের এবং তান্ত্রিকদের দর্শন হত মন্দির অথবা ঘন জঙ্গলে অথবা প্রকিত মাটির কুটিরে … কিন্তু আজকাল এইসব ভগবানের দর্শন হয় উনার বিভিন্ন চেম্বারে যেখানে সময় সময় Air Conditioner / Air Cooler ও থাকে।)

আপনারা তো গেলেন অনেক ভক্তি শ্রদ্ধা শ্রম্ভ্রম নিয়ে এই মহান তান্ত্রিকের সঙ্গে দ্যাখা করতে শনিবার ৩ টের সময়, কারণ যখন আপনি ফোন করেছিলেন তখন মহান তান্ত্রিকের নিজস্ব বিশ্বস্ত মহিলা চ্যালা বলে দিয়েছেন যে যদি ৩ টের ভেতর না আসেন তা হলে দ্যাখা হবেনা কারণ আপনার মতন অনেক ভক্ত সমাগম হয়, উনি (মানে চ্যালা) শুধুমাত্র আপনাদের জন্য টাইম আগে ফিক্স করে দিয়েছেন। আপনি তো তাই শুনে দারুন ভাগ্যবান মনে করেছেন নিজেকে। যতোই হোক এই রকম স্বনামধন্য একজন তান্ত্রিকের চ্যালা আপনাকে প্রথম ফোনেই স্পেশাল কেয়ার দিয়েছেন, তাই এইবার আপনাদের ভাগ্য ১৮০ ডিগ্রী ঘুরে যাবে, আর আপনার মেয়ে দারুন নাম্বার পাবে, কমপক্ষে পাশের বাড়ির মেয়ে রিয়ার থেকে তো বেশি পাবেই আর আপনাদের সামাজিক স্ট্যাটাস আবার ফিরবে।

এইবার শ্রী হরি নারানের চেম্বারে ঢুকেই দেখলেন দুই একটি লোক বসে আছে, তাদের হাতে প্রেস্ক্রিপ্সন (ডাক্তারের নয়, তান্ত্রিক বাবার) ধরানো আছে। আড় চোখে দেখলেন প্রেস্ক্রিপ্সনে তিন চারটি লেখা। আপনাকে চেম্বারে ঢুকতেই বলা হল ৫০০ টাকা দিতে নাম লেখানর জন্যে। এইবার সুরু হল অপেক্ষার পালা। বসে আছেন তো বসেই আছেন, মহান তান্ত্রিক বাবার সময় আর হচ্ছে না, আপনাকেও ডাকছে না। আপনি এদিক ওদিক দেখে কিছুতেই বুজতে পারছেন না যে তাত্রিক বাবা কোথায় বসে লোক দেখছেন। প্রায় ১-২ ঘণ্টা পরে যখন আপনাকে বলা হল যে বাবা ডাকছেন (বাবা আবার মেঘনাদের মতন সামনে থাকেন না, উনি অন্য একটি কুঠুরি সিক্রেট ঘর থেকে কলিং বেল বাজিয়ে জানান দেন চেলা মহিলাদের লোক পাঠাতে উনার ঘরে)।

আপনি গেলেন সিক্রেট ঘরে মহান কল্কী ডঃ তান্ত্রিক বাবার সঙ্গে দ্যাখা করতে (দ্রষ্টব্য – এই হরি তান্ত্রিক বাবা আবার সনাতন বৈদিক astrology & astronomy তে বিশ্বাস করেন না, উনার কথা অনুযায়ী astrology mathematical calculations সব ফালতু, কোন কাজের নয়, খাটি রত্নের কোন ক্ষমতাই নেই, উনি শুধু মাত্র so called তন্ত্রের বলে যে কারও যে কোন সমস্যা মেটাতে পারেন … যাই হোক!)। এই হরি তান্ত্রিকের গাল ভরা লোক ঠকানো বানি হল, তন্ত্র মন্ত্র কথা বলে যার তাঁর জন্য তন্ত্রের প্রয়োজন নেই। আরে বাবা এই বানিটি উনি তো বলবেনই, কারণ সানাতন বিজ্ঞ্যান ভিত্তিক জ্যোতিষ চর্চা করতে হলে তো পেটে সত্যি সত্যি পড়াশুনা এবং বিদ্যা থাকার দরকার, এবং তাঁর জন্য অনেক পরিশ্রম এবং অদ্দ্যাবসায় দরকার হয় যে দুটোর কোনটাই উনার কোন কালেই নেই। আর সেই কারণেই ভণ্ড তন্ত্রগিরি করেই চালিয়ে যাচ্ছেন আর লজ্জাহীন ভাবে আপনার আমার মতন সরল সমস্যা জর্জরিত মানুষদের গোল গোল ক্রমাগতঃ ঘুরিয়ে মারেন আর কাড়ি কাড়ি টাকা মেরে দ্যান মিষ্টি মিষ্টি কথা বলে, যেটা আমরা বোকারমতন মেনে নিতে বাধ্য হয়ে যাই মনের দুর্বলতায় সেই মুহূর্তে। এবং কয়েক মাস পরে যখন আমরা নিজেদের ভুল বুঝতে পারি, বুঝতে পারি যে এই হরি নারানের মতন ঠগ ভণ্ড তান্ত্রিক জ্যোতিষ আমাদের বোকা বানিয়েছে, ততদিনে অনেক দেরি হয়ে যায়, কারণ ততদিনে আপনি এবং আমার মতন সমস্যা জর্জরিত মানুষেরা এই সব ভণ্ডদের ৫০০০ – ৫০০০০ অথবা তার থেকেও বেশি টাকা দিয়ে দেই আমাদের জীবনের সমস্যা মেটানোর জন্যে, এবং সব থেকে বড় ভুল করি আমরা যেটা, সেটা হল, আপনি আমি অথবা আমাদের মতন সমস্যা জর্জরিত কোন মানুষই সেই টাকা দেবার মুহূর্তে কোনরকম আইনের সাহায্য নেইনা। অর্থাৎ, আপনি যে টাঁকাটা এই ভণ্ড তান্ত্রিক অথবা জ্যোতিষ বাবা কে দিলেন, আপনি কিন্তু তাঁর জন্যে কোনরকম আইনগত একটিও নথিপত্র বানালেন না যেটায় পরিস্কার বাংলা অথবা English ভাষায় লেখা থাকল যে ঠিক কত টাকা ঠিক কি কি কাজের জন্যে আপনি এই হরি নারান (অথবা যে কোন ভুয়ো ছদ্মনামধারী আচার্য, শাস্ত্রী, মহারাজ ইত্যাদি) ভণ্ড তান্ত্রিক অথবা ভণ্ড জ্যোতিষ বাবা অথবা মা কে কোন তারিখে কোথায় দিলেন। শুধু তাই নয়, যেহেতু আপনি কোন আইনগত নথীপত্র সই করলেন না ও তান্ত্রিক/জ্যোতিষ বাবা/মা/মহারাজ/আচার্য/শাস্ত্রী কে দিয়েও আপনার আইনগত নথিপত্রটিতে সই করালেন না, তাই আইনগত ভাবে কোথাও কোন একটিও প্রমান থাকল না যে আপনি ওই তান্ত্রিক/জ্যোতিষ বাবা/মা/মাহারাজ/আচার্য/শাস্ত্রী কে টাকা দিয়েছেন এবং কত টাকা কেন দিয়েছেন। হয়ত “আইনগত নথীপত্র” শুনে আপনার হাসি পাচ্ছে এই মুহূর্তে, কিন্তু যদি সত্যি সত্যি এই জীবনে আর ঠকতে না চান, তবে অবশ্যই আর এই সব ভণ্ড তান্ত্রিক/জ্যোতিষ বাবা/মা/মহারাজ/আচার্য/শাস্ত্রীদেরকে নিজের টাকা দেবেন না ভুয়ো মিষ্টি মিষ্টি কথায় ভুলে কোনরকম সমস্যা মেটানোর জন্যেই, আর যদি আপনার দুর্বল মন না মানে, তাহলে আজ থেকে সমসময় নিজের আখের গুছিয়ে নিয়ে তবেই এই সব তান্ত্রিক ও জ্যোতিষ বাবাদের ও মাদেরকে টাকা দেবেন, অর্থাৎ, এদেরকে কোন টাকা দেবার আগে অতি অবশ্যই এদেরকে দিয়ে একটা আইনগত নথীপত্রে সই করিয়ে নেবেন এই লিখে যে আপনি কত টাকা কত তারিখে কি কি কাজ করার জন্যে ও কতদিনে আপনার লিখিত সমস্যা মেটানোর শর্তে এই তান্ত্রিককে টাকা দিচ্ছেন। অতি অবশ্যই নথীপত্রে পরিষ্কার লিখবেন যে যদি ওই তান্ত্রিক অথবা মহারাজ অথবা শাস্ত্রী অথবা আচার্য অথবা অমুক মা একটি নির্দিষ্ট সময়ের ভেতরে (৩ মাসের বেশি নয় কখনই)আপনার সমস্যা না মেটাতে পারেন আপনার নথীপত্র অনুযায়ী, তাহলে উনি আপনাকে পুরো টাকা তো ফেরত দেবেনই উপরন্তু আসলের ওপর আরও ১০ শতাংশ সুদ দেবেন আপনাকে, কারণ উনি নথীপত্রের চুক্তি অনুযায়ী কাজ সম্পূর্ণ করতে ব্যর্থ।

মনে রাখুনঃ- আইনগত নথীপত্রটি অতি অবশ্যই হতে হবে ১০০– ৫০০ টাকার non-judicial stamp paper যেটা উনার আসল নামে কেনা, মানে ভুয়ো শাস্ত্রী নামক ছদ্দনামে নয়, এবং কিনবেন আপনি, কারণ উনি ভুয়ো stamp paper কিনবেন, সাবধান!

আরও বাস্তব কিছু কথা জানাবার আগে আসুন ভণ্ড বাবা শ্রী হরি নারানের বাস্তব উদাহরণটি শেষ করি… আপনি গেলেন সিক্রেট ঘরে মহান কল্কী হরি নারান তান্ত্রিক বাবার সঙ্গে দ্যাখা করতে সিক্রেট ঘরে (যেটি একটু অতি পুরন পেছনের secret ঘর)।  বাবা আপনার নাম ধাম গোত্র জন্ম তারিখ জন্ম স্থান জেনে নিলেন …। কিন্তু কি আশ্চর্য … যিনি নিজেকে মহান ডঃ  তান্ত্রিক বলে দাবী করেন এবং যিনি মনে করেন তন্ত্র-মন্ত্রই সব, astrological science & Vedic mathematics ফালতু … কিন্তু তিনিও আপনার বর্তমান পরিস্থিতি জানবার জন্য সেই astrological chart & calculations এর সাহায্যই নিচ্ছেন।

আপনি একটু আশ্চর্য হলেন, কিন্তু আপনার অটল বিশ্বাস ধরে রাখলেন … যতই হোক আপনি কলিযুগের মহান তন্ত্র বিশারদের সামনে বসে আছেন যিনি দাবী করেন আপনার জীবনের যে কোন সমস্যার Lifetime permanent সমাধান করতে পারার, সেটাও শুধুমাত্র তন্ত্র-মন্ত্র দিয়েই পারেন, যে বিদ্যা লাভ করতে গেলে ভগবান শ্রী রামকৃষ্ণের মতন সারাজীবন ক্রিচ্ছসাধান, ত্যাগ ও ঘোর তপস্যা প্রয়োজন … কিন্তু কলিযুগের এই তান্ত্রিক বাবারা যে ভগবান শ্রী রামকৃষ্ণের থেকেও অনেক বড় সাধক! … তাই তারা ভগবান শ্রী রামকৃষ্ণের মতন কষ্টের সাধন ছাড়াই ভোগবিলাস করতে করতেই তাঁর থেকেও অনেক বড় তান্ত্রিক হয়েছেন, তাও আবার মাত্র কয়েক বছরের ভেতরেই …. সত্যি ভাবার বিষয় যে এত সহজ shortcut উপায় থাকতেও কেন ভগবান শ্রী রামকৃষ্ণ শুধু শুধু সারাজীবন কষ্ট করে মরলেন একজন তান্ত্রিক হবার জন্য, তাও আবার কোন রকম ভোগবিলাস না করে, কোন টাকাপয়সার ধারেকাছে না গিয়ে শুধুমাত্র মানুষের উপকার করে গেলেন সারাজীবন… আমরা তো ভেবেই এর উত্তর পাইনা, আপনি পেয়েছেন এর সঠিক যুক্তিযুক্ত উত্তর? … পেলে প্রমাণ সমেত Please লিখে পাঠাবেন আমাদের

এরপর, উনি কোনরকম হিসেবের ভেতরে না গিয়ে, কোনরকম হিসেব নিজে না করে computer screen থেকে পুরো টুকে দিলেন আপনার কি কি problem চলছে, এবং টুকে দিলেন জন্মছকটি হুবহু উনার তথাকথিত prescription এ। ভাবুন, এই টোকার কাজের জন্যে উনি already আপনার কাছ থেকে চর মেরে মিষ্টি মিষ্টি কথা বলে আপনার মনের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে ৫০০ – ১০০০ টি টাকা মেরে দিয়েছেন। এইখানে শেষ নয়! শ্রীযুক্ত হরি নারান বাবু আপনাকে সব মুখেই বলবেন কি কি সমস্যা আছে আপনার (যেমন কিছু খুব common ভয় দ্যাখানর জিনিষ হও, শনির সাড়ে সাতি, রাহুর দোষ,নীচশ্ত রবি অথবা বৃহস্পতি ইত্যাদি ইত্যাদি)। উনি সব কথা আপনাকে শুধু মুখেই বলবেন, কিছুই নিজে হাতে হিসাব করে যুক্তি দেখিয়ে লিখে দেবেন না।  উনি আপনার জন্য খুব বেশি হলে (যদি বেশি লোক chamber এ সেদিন না হয়)  ২০ – ২৫ মিনিট দেবেন, সেটাও আপনাকে আরও ভয় দাখ্যাতে যাতে আপনি অবশ্যই কিছু money advance করে যান সেইদিনকেই, কারণ কে বলতে পারে chamber এর বাইরে গেলেই আপনার সঠিক যুক্তিযুক্ত সাধারণ সুবুদ্ধির উদয় হবেনা? কারণ, আপনার মন দুর্বল থাকতে থাকতেই যদি আপনাকে জবাই করে ফেলা যায় কিছু টাকা নিয়ে, তাহলেই আপনি উনার কাছে আবার আসলেন কি আসলেন না তাতে কিছুই উনার এল-গ্যালো না। কারণ, প্রথমেই উনার পকেটে আপনার টাকা অতি সহজেই প্রথমদিনেই ঢুকে গিয়েছে ততক্কনে। এই ভাবেই তো উনার পশার আজ ১০-১৫ বছর চলছে দমদমের আর কলকাতার বুকে। হ্যাঁ, আজকাল একটু গুন্ডা পুশতে খরচ হয় বইকি, কারণ বেশ কিছু লোক আজকাল চালাক চতুর হয়ে গ্যাছে, কারণ তাঁরা টাকা দিয়ে কয়েক দিন পর থেকে প্রতি মাসে কাজের কথা জানতে চায় এবং কাজের Progress টাকা নেবার সময়ে করা Promise অনুযায়ী না পেলে টাকা ফেরত চায়, আবার chamber এও এসে কথা বলতে চায় অথবা টাকা ফেরত দিতে বলে কাজ না হলে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী। কি সমস্যা বলুন দেখি? এই সব সরল মানুসগুলো বুঝতেই চায়না যে শ্রী হরি নারানের মতন তান্ত্রিকদের ও জ্যতিশদের কাজতাই হল মানুষকে ঠকানো। তখন ওই গুন্ডা দিয়ে ভয় দ্যাখাতে হয় যাতে লোক ঠকানো টাকা ফেরত দিতে না হয়।

ফের কথায় ফেরা যাক … আপনাকে আপনার ভাগ্য নিয়ে ভয় দ্যাখান হয়ে যাবার পর উনি আপনাকে হনুমান কবচ, কমলা কবচ, তাঁরা কবচ, কালী মা কবচ, জরিবুটি প্যাকেট (স্নানের জন্যে, কারণ আপনি উনার মতন পবিত্র নন! ভাবুন একবার, কত বড় অপমান করছেন আপনাকে!) prescribe করলেন এবং প্রতিশ্রুতি দিলেন যে এইসব “ছোটখাটো” সমস্যা উনার কাছে জলভাত, উনি সমাধান করেই দেবেন। তাই উনার Computer Printed “Remedy Package” Menu (ঠিক যেন Restaurant Menu!) থেকে আপনার সঙ্গে “দরাদরি” (মাছের দরের মতন!) করে সব থেকে দামিটি থেকে একটু কম দামিটি (মানে, আপনি যাতে ভাবেন উনি কত সথ ব্যক্তি!) আপনার ঘাড়ে ফেললেন, এবং আপনার কাছ থেকে কড়কড়ে ৭৫০০– ১৫০০০ অথবা তার থেকেও বেশি টাকা নিজের পকেটে ঢুকিয়ে নিলেন, কোনরকম আইনগত চুক্তি নথীপত্রে স্বাক্ষর ছাড়াই! মানে দাঁড়াল, যদি উনি কয়েকদিন পরে অথবা কয়েকঘণ্টা পরেই আপনাকে চিনতে না পারেন অথবা আপনার কোন কাজের ও সমস্যার সমাধান করতে না পারেন, তবুও আপনি উনার বিরুধ্যে কোন রকমের আইনগত ব্যবস্থা নিতে পারবেন না। শুধু তাই নয়, আপনি সাধারণ লোক হলে (মানে কোন নেতা অথবা নেতার কাছের লোক না হলে) আপনি এইসব ভণ্ড তান্ত্রিকদের কোন ভয় দ্যাখাতেও পারবেন না, কারণ এঁরা আপনার পয়সা দিয়ে আপনাকেই ঠ্যাঙ্গানোর জন্যে গুন্ডা পুশে রাখেন।

এবং যথারীতি ভগবানের অমোঘ নিয়মে আপনার কোন সমস্যাই ভণ্ড তান্ত্রিক শ্রী হরি নারান সমাধান করতে পারবেন না (খুব সহজ কারণ উনি ভগবান নন অথবা ভগবান শ্রী রামকৃষ্ণের মতন যুগাবতারও নন!) এবং আপনিও কয়েক মাস গোল গোল ঘোরার পরে হাল ছেরে আর উনার কাছে যাবেন না। তএব আপনার রক্ত জল করা পুরো টাকা তান্ত্রিকের পকেটে আর উনার জীবনে উন্নতি হলেও আপনার ও আপনার পরিবারের জীবন আরও রসাতলে গেল।

বিরাটির BigBazaar এর কাছে এক জনৈক প্রেততাত্ত্বিক লোক ঠকানর এক নতুন উপায় বের করেছিলেন। এই ঠগি মোটা টাকা নিয়ে নেবার পরে কাজের গতি সম্পর্কে খোজ নিতে চাইলেই বলত যে “আপনার কাজ করেছি, কয়েকদিনের ভেতরেই একটি প্রেত আপনার বাড়িতে যাবে আমার তরফ থেকে ও আপনাকে রক্ষ্যা করবে ও আপনার সব সমস্যা মিটিয়ে দেবে”। ১-২ মাস যাবার পরে যথারীতি মক্কেলের কোন কাজই হয়নি। কিন্তু মক্কেল কাজ না হবার কারণ জিজ্ঞেস করতেই এই ঠগবাজ বলত যে “আরে দাদা কাজটা হয়েই যেত, কিন্তু আফগানিস্থানে “ভুমিকম্প” হবার জন্যে আপনার কাজ নষ্ট হয়ে গেলো”ভাবুন একবার কত বড় দ্মিত্থ্যা কথা (চলতি ভাষায় মহা ঢপবাজ!)। এরপর দুর্বল মনের মক্কেল (client) আবার ইনাকে ৩০০০০ টাকা দিলেন মিত্ত্যা মিষ্টি প্রতিশ্রুতিতে ভুলে গিয়ে (যেটা সব সাধারণ সরল মানুষের হয়, চট করে ঢপবাজের ঢপবাজি মেনে নিতে কষ্ট হয় সমস্যা জর্জরিত দুর্বল মুহূর্তে, ঠিক যেটার ফায়দা এই ভণ্ডরা নেয়!)। এবারও প্রেততাত্ত্বিক বললেন যে মক্কেলের জন্যে উনার স্পেশাল মহিলা প্রেত পাঠাচ্ছেন যিনি জীবিত অবস্থায় উনার প্রিয় বন্ধু ছিলেন, তাই এবার মক্কেলের কাজ হবেই হবে। মক্কেল বাড়িতে গিয়ে মহিলা প্রেত দ্যাখার ও প্রেতের সাহায্যের জন্যে ১ মাস বসে থেকে থেকে হাপিয়ে গিয়ে আবার যেই প্রেততাত্ত্বিককে জিজ্ঞেস করেছেন “কি হল দাদা? আপনার মহিলা প্রেতের তো দাখ্যাই নেই ও আমার সমস্যা তো ৪ মাস পরেও মেটাতে পারলেন না?” … সঙ্গে সঙ্গে ঠগি প্রেততাত্ত্বিকের পোষা গুণ্ডার দল (যারা কিনা উনার বারিতেই থাকে) প্রথমে লুকিএ লুকিয়ে দরজা জানালায় বিভিন্ন্য রকম শব্দ শুরু করল যাতে মক্কেল ভাবে ভুতেরা ভয় দাখ্যাছে, আর ভয় পেয়ে পালিয়ে যায়। কিন্তু মক্কেল ভয় না পাওয়াতে, অগত্যা গুণ্ডার দল অবশেষে বন্দুক বের করে মানব শরীরে মক্কেলকে ও তাঁর মেয়েকে হ্যান্সথা করে বের করে দিয়েছিল। এই হচ্ছে আজকালকার প্রেততাত্ত্বিকদের কড়া বাস্তবচেনার সুভিধার জন্যে বলে রাখি এই ভণ্ডটি শিক্ষিত মানুষদের বোকা বানানোর জন্যে আবার বইও লেখে। আসলে নিজে লেখে না, অন্নকে দিয়ে লিখিয়ে নিজের নামে ছাপায়, যাতে সবাই ভাবে ইনি অন্য চলতি থগবাজদের থেকে আলাদা ও ভদ্রলোক, যেটা আসলে একটা মানুষকে বোকা বানাবার নতুন উপায় এবং সেটা অচিরেই বোঝা যায় ইনাকে টাকা দিয়ে থকার পরে, যেমন এই মক্কেলের হয়েছিল।

জীবনে সুখে থাকার দুটি উপায় আছে, একটি হল “ঠকে শেখা” / “ঠেকে শেখা”, যেটা বেশ কষ্টকর এবং আর একটি সহজ উপায় হল “দেখে শেখা”/“অন্যের ভুল থেকে শেখা”/“ঠকার আগেই বাস্তব জেনে সাবধান হয়ে যাওয়া”

যে কোন একটু সাধারণ বুদ্দ্যি ও যুক্তি সম্পন্ন মানুষই দ্বিতীয় উপায় অবলম্বন করেন (মানে নেন), কারণ ঠকার আগেই বাস্তব জেনে সাবধান হয়ে যাওয়া ও অন্যের ভুল থেকে শিখে গেলে নিজের ও নিজের পরিবারের ক্ষতি হয়না, ভণ্ড তান্ত্রিক/জ্যোতিষ বাবা/মা/মহারাজ/আচার্য/শাস্ত্রী/ প্রেততাত্ত্বিকের কাছে অযথা ঠকতে হয়না এবং নিজের কষ্টার্জিত উপার্জনটাও নিজের বাঙ্কেই থাকে ও সুদে বারতে থাকে, ওই  ভণ্ডর বাঙ্ক অ্যাকাউন্টে নয়।

আমরা এই ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে আপনাকে বর্তমান বাজারে চলতি সবরকম লোক ঠকানোর উপায় জানালাম এবং এই ভণ্ড তান্ত্রিক ও ভণ্ড জ্যোতিষেরা কিভাবে জ্যোতিষ ও তন্ত্র বিদ্যাকে লোক ঠকানোর কাজে ব্যবহার করছে তার কয়েকটি অতি বাস্তব ছবি (ঘটনা) জাণালাম। এই ভণ্ডামি শুধু পশ্চিমবঙ্গেই নয়, এই ভণ্ডরা এই দুই নাম্বারি কারবার অন্য রাজ্যেও নিয়ে যাচ্ছে।

অতএব, খুব সাবধানে ভেবেচিন্তে পা ফেলবেন নিজের সঠিক সুবুধ্যি প্রয়োগ করে এবং অতি অবশ্যই আমাদের সাব্ধানবানী মনে রাখবেন ও মেনে চলবেন, তাহলে আপনি এই ভণ্ডদের কাছে আর ঠকবেন না

freesuperhoroscopeastrologycomboreportsbestastrologerinkolkatanaihatibarrackporebandelchinsurah

কিন্তু ভগবান আপনাকে একবার বোঝালেও, আপনি ভণ্ড হরি নারানের কাছে ঠকে গেলেও থামবার পাত্র নন, কারণ আপনার মাথায় এইসব ভণ্ড তান্ত্রিক ও জ্যোতিষ বাবারা এবং জ্যোতিষ তান্ত্রিক মায়েরা ঢুকিয়ে দিতে পেরেছেন (মানে যাকে চলতি ভাষায় বলে brain wash করেছেন!) যে আপনি কোন কম্মের নন (in English what is known as “Stupid Waste fellow”!!) এবং আপনি এততাই বোকা যে আপনি নিজের জীবনের সমস্যার সমাধান করতে অপারগ, এমনকি আপনি একজন প্রতিবন্ধীর সমতুল্য যে কিনা নিজের ভার নিজে টানতে পারেনা, যার সাধারণ চিন্তা শক্তি নেই, যে নিজের ভালমন্দের হিসাব করতে অক্ষম, যে নিজের চেষ্টায় কিছু শিখতে অক্ষ্যম এবং সর্বোপরি জীবনে সমস্যায় পড়লে অপরের সাহায্য ছাড়া কিছু করতে ও ভগবান প্রদত্ত্য নিজের সাধারন বুদ্ধিটুকু প্রয়োগ করে ঘুরে দাড়াতে অক্ষ্যম। অর্থাৎ আপনি একজন মহা হতভাগা এবং মহা মাথামোটা। তাই আপনার এই জীবনে আপনকে বাঁচাবার গুরুদায়ীত্ত্য দেওয়া উচিৎ শ্রী হরি নারান অথবা অন্য বাজার কাটতি তান্ত্রিক বাবা / মা অথবা আজকাল নতুন উদ্ভাবিত স্পেশাল “প্রেততাত্ত্বিক”দের ওপরে এবং তাঁরা নাকি দৈব বলে আপনার সমস্ত সমস্যার সমাধান মুহূর্তের মধ্যে করে ফেলবেন। আর এই brain wash এর দুই নাম্বারি কাজে ইন্ধন যোগায় আজকালকার কয়েকটি ভাগ্য বিষয়ক পত্রিকাগুলো (Monthly Magazines) ও দৈনিক খবরের কাগজগুলি, কারণ এই পত্রিকাগুলোতে এই ভণ্ড তান্ত্রিকের ও জ্যতিষের দল বিভিন্ন রকম মিথ্যা প্রতিশ্রুতি লিখে ছাপায়, যেগুলো পড়ে সাধারণ নিষ্পাপ মানুষেরা জীবনের অতি সমস্যাপূর্ণ মুহূর্তে দুর্বল হয়ে পড়েন ও সব ভণ্ড ত্রান্ত্রিক, ভণ্ড জ্যোতিষ, ভণ্ড প্রেততাত্ত্বিকদের মিথ্যা প্রতিশ্রুতিকে সত্যি ভেবে তাদের চেম্বার গিয়ে ভিড় করেন, এবং তাদের মিষ্টি কথায় ভুলে গিয়ে নিজের মূল্যবান জমানো পূঁজি টাকা কোনরকম সঠিক যুক্তিপূর্ণ চিন্তাভাবনা না করেই এই ভণ্ডদের হাতে বিনাশর্তে তুলে দিয়ে কপাল চাপড়ান ও সর্বস্বান্ত হয়ে যান

সব থেকে মোক্ষম ব্যাপার হল, কোন ভাবেই কিন্তু আমরা এই পত্রিকাগুলি ও খবরের কাগজগুলিকে দায়ী করতে পারব না, তার কারণ, এই সব ভণ্ড তান্ত্রিক ও ভণ্ড জ্যোতিষীদের বিজ্ঞ্যাপনের একেবারে নীচে কাগজের সম্পাদক লিখে দেন যে তাঁরা সরল বিশ্বাসে এই ভণ্ডদের বিজ্ঞ্যাপন ছাপাচ্ছেন প্রতিদিন, কিন্তু এইসব তান্ত্রিক ও জ্যোতিষ বাবা/মা/শাস্তী/ আচার্য ভুয়ো কিনা সেটা যাচাই করবার দায়িত্ত্য আপনার ও আমাদের। অর্থাৎ যদি আপনি ইনাদের খবরের কাগজের বিজ্ঞ্যাপন দেখে এইসব ভণ্ডের কাছে যান ও নিশ্চিত ভাবে কাড়ি কাড়ি টাকা নষ্ট করেন ও ঠকে যান, তাহলেও আইনগত ভাবে সম্পাদক দায়ী থাকবেন না। অতএব, আপনার, আমার ও আমাদের সবার উচিৎ এই ভণ্ডদের কাছে না গিয়ে বরং নিজের সঠিক ও কঠিন ভবিষ্যৎ জেনে নেওয়া এবং সেই মতন আজ থেকেই বুদ্ধি করে নিজের জীবন চালান, যাতে ভবিষ্যতে সমস্যা আসলেও আপনি অতি সহজেই তার মোকাবিলা করতে পারেন, অথবা সমস্যা কাটিয়ে যেতে পারেন অতি সহজেই।

যদি আমাদের কথা এবং অভিজ্ঞ্যতা আপনার অভিজ্ঞ্যতার সঙ্গে মেলে ও আপনার আমাদের কথা সত্য বলে মনে হয়, তবে আমাদের কথা মতন একবার ভগবান ও নিজের উপর বিশ্বাস রাখুন, এবং নিজের প্রকিত সত্য (সে যতই কঠিন হোক না কেন!) ও প্রকিত ভবিষ্যৎ জানুন নিজেকে সেই মতন প্রস্তুত করুন আজ থেকেই।

নিজের জন্য কিছু ভাল করুন একবার, নিজের সঠিক ভবিষ্যৎ জানুন। এখানে টিপুন ও আপনার নিজের ও আপনার অতি প্রিয়জনের জন্যে astro combo reports pack অর্ডার করুন।

এদের ভণ্ডামি এতটাই বেড়েছে যে আজকাল এঁদের কেউ কেউ আবার লিখিত প্রতিশ্রুতি দিয়ে কাজ করার কথা বলে, যেটা সম্পূর্ণ মিত্ত্যা কথা। কারণ এঁরা কেউই আপনার আমার মতন বোকা নন, তাই এঁরা কেউই ভুল করেও কখনই কোনরকম আইনসম্মত কাগজে আপনাকে প্রতিশ্রুতি লিখে দেবেন না টাকা নেবার সময় যে কি কি কাজ করবার জন্যে এঁরা আপনার কাছ থেকে টাকা নিলেন ও ঠিক কত দিনের ভেতরে আপনার সমস্যার পুরো সমাধান না করে দিতে পারলে আপনাকে উনি পুরো তাকাতাই ফেরথ দিয়ে দেবেন, বিশেষত টাকার পরিমান যদি ৩০০০ টাকার বেশি হয়। তাঁর সহজ কারণ হল যদি এঁরা ভদ্রলোকের মতন (পরুন বোকার মতন) আইনি দস্তাবেজে (মানে non-judicial Calcutta High Court stamp paper with both parties  original names as per individual’s birth certificate/voter ID card/Aadhar card & contract written in details) সই করে আপনার কাছ থেকে টাকা নেন তাহলে সেটা এইসব ভণ্ডদের কাছে বিরাট ঝুঁকির কাজ হবে, কারণ ইনারা খুব ভাল করেই জানেন যে ইনারা আপনার কপাল ৩ মিনিট/৫ মিনিট/৫ ঘণ্টা/ ১২ ঘণ্টা/ ২৪ ঘণ্টা কেন, সারাজীবনেও ফেরাতে পারবেন না, ও আপনার কোন সমস্যার কোন সমাধানই করতে পারবেন না। তাই এই ভণ্ড ঘাগুমাল ধূর্ত লোকেরা কখনই আপনার সঙ্গে কোন রকম সঠিক আইনগত চুক্তিপত্র তৈরি করেন না টাকা নেবার সময়, কারণ সেক্ষেত্রে আপনার হাতে কোন প্রমান থাকবে না যেটা দিয়ে আপনি উনার বিরুধ্যে কোনরকম আইনগত ব্যবস্থা নিতে পারেন যদি আপনার সমস্যার সমাধান না হয় সময় মতন যেমন উনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন টাকা নেবার সময়। একটা কথা সবসময় মনে রাখবেন যে, এইসব তান্ত্রিক/জ্যোতিষ বাবা/মা/মহারাজ/আচার্য/শাস্ত্রীদের দেওয়া সাধারণ স্লিপের (normal receipt) কোন দাম নেই আইনের কাছে।

এঁদের কেউ কেউ মানুষকে বোকা বানাবার জন্যে অনেক সময় স্লিপ(normal receipt) ধরায়  প্রথমবার আলোচনার সময় (means during first visit), আর তাতেই সাধারণ মানুষ ভেবে ফেলেন যে এঁরা কত না সথ ব্যক্তি, যেটা পুরো মিথ্যা, কারণ যদি এঁরা সত্যি সথ ব্যক্তি হন তাহলে এবার থেকে এদেরকে বলবেন আপনার কাছ থেকে মোটা টাকা নেবার সময় সঠিক আইনগত নথিপত্রে সঠিক ভাবে বিস্তারিত লিখে চুক্তি করতে এবং আইনগত লিখিত চুক্তি করতে এই মর্মে যে যদি উনারা লিখিত চুক্তি অনুযায়ী আপনার সমস্যার সঠিক সম্পূর্ণ সমাধান ছুক্তিবদ্ধ্য সময়ের ভেতরে করতে না পারেন তবে উনারা আপনার পুরো টাকা ১০ শতাংশ সুদ সমেথ আপনাকে ফেরত দেবেন। আর যদি না ফেরথ দ্যায়, তাহলে আপনি এঁদের বিরুধ্যে আইনগত মামলা করে আপনার টাকা যথাসম্ভব ফেরথ নিতে পারবেন। যদি মামলা অনেকদিন ধরেও চলে, তাহলেও আপনি সেই মামলার বিবরণ ও মামলার নাম্বার (FIR Number & Case Number) জনৈক খবরের কাগজে ছাপিয়ে এই ঠগদের বিরুধ্যে প্রতিশোধ তুলতে পারবেন, এবং এই ঠগদের সম্পর্কে সবাইকে জানিয়ে নিজের গায়ের জ্বালা মেটাতে পারবেন ও সমাজের উপকার করতে পারবেন যাতে এঁরা অন্য কাউকে ঠকাতে না পারে।

এখনকার বাংলা খবরের কাগজ খুল্লেই দেখবেন কত কত তান্ত্রিকদের advertisements, আর সবাই দাবী করে যে তারা ২৪ ঘণ্টা, ৫ ঘণ্টা, ৩ ঘণ্টা, ৫ মিনিট অথবা মাত্র ৩ মিনিতে সমস্যার সমাধান করে দেবে … ভাবুন একবার???  এমনও হয় !!!  আপনি আমি কি এতই মাথামোটা যে এই সহজ মিথ্যাটুকুও বুঝতে পারিনা?

আমার বিশ্বাস যে মা কালী, মা দুর্গা, মা বগলা, মা তারা, মা ছিন্নমস্তা, মা সরস্বতী, মা লক্ষ্মী এই সব শর্টকাট তান্ত্রিক বাবাদের বাড়িতে রান্নার কাজ করেন এবং ভগবান হনুমান, বাবা লোকনাথ এই মহান তান্ত্রিকদের দয়াতে জীবন কাটাচ্ছেন … তা না হলে কি করে এই যুগে এই তান্ত্রিক বাবারা প্রতিদিন বলে বলে প্রত্যেক মানুষের সমস্যার “সমাধান” করছে বলে দাবী করেন? (সব থেকে আশ্চর্যের ব্যাপার ২৪ ঘণ্টা, ৫ ঘণ্টা, ৩ ঘণ্টা, ৫ মিনিট, ৩ মিনিটেই সব কঠিন সমস্যার “সমাধান” …!!)… আর গরিব বড়লোক নির্বিশেষে কাড়ি কাড়ি টাকা নিচ্ছে জীবনের কঠিন সমস্যা মেটানোর মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে? আপনার কি মনে হয়, বলুন না? আমাদের কি উচিত মা কালির পূজা করা নাকি তাঁর “মালিক” ওই তান্ত্রিক বাবাদের পূজা করা যারা তন্ত্র সাধনায় শর্টকাট নিয়েছেন এবং তন্ত্র বিদ্ধ্যায় পারদর্শিতা অর্জনের ক্ষেত্রে ভগবান শ্রী রামকৃষ্ণকেও “হারিয়ে” দিয়েছেন?

এখনকার সব তান্ত্রিকদের কাছে সব থেকে সহজ কাজ হল যে কোন মানুষকে কয়েক মিনিটের মধ্যে “বশ” করে ফেলা… এনারা নাকি যে কোন দিন যে কোন সময় যে কাউকে মাত্র ২৪ ঘণ্টা, ৫ ঘণ্টা, ৫ মিনিট অথবা ৩ মিনিতেই “বশ” করে ফেলতে পারেন, ভাবুন একবার কি ক্ষমতা গুছিয়ে সারাদিন ধরে রোজ মিথ্যা কথা বলবার !! …মানে তিথী নক্ক্যত্রর বালাই নেই, ধ্যানের বালাই নেই, অদ্ধ্যাবশায়ের বালাই নেই, কোনরকম প্রকিত রীতি নিওমের বালাইও নেই … কিন্তু “বশীকরন” করে ফেলবেন ৩ মিনিট অথবা ২৪ ঘণ্টাতেই, তাও আবার ১ টি মানুষকে নয়, কম করে ৩০ – ৪০ জনকে কারণ সামনের মঙ্গলবারই যে client দেরকে ভুও তাবিজ-কবচ এবং খুব নিম্নমানের নীলা (এই পাথরটি শনির সারে সাতি হলেই এঁরা prescribe করেন গথে বাধা নিয়মে সে কাজে লাগুক আর উল্টো ফলই হোক… কারণ প্রকিত astrologer কখনোই গথে বাঁধা ছকে কোন কিছু ধারণ করতে বলেন না, কারণ প্রতিটি মানুষের জীবনই আলাদা ভাবে ভগবান লিখে পাঠিয়েছেন তাই প্রত্যেকের সমস্যা পৃথক অপরের থেকে, তাই সমাধান পৃথক যেটা বিশদভাবে calculation & analysis (গণনা) না করে কখনই বলা যায়না, সে যে যাই বলুক গায়ের জোরে।) অথবা পোখরাজ ধরাতে হবে কেননা টাকা already উনার পকেটে ঢোকানো হয়ে গিয়েছে আজকেই দমদমের চেম্বার থেকে, যেখানে উনার মতন আরও ২-৩ জন ভণ্ড লোকঠকানো তান্ত্রিক বাবা বসেন। … জিজ্ঞেস করলে আবার অবাক হয়ে চেয়ে থাকেন, কারণ ৯০% তো স্কুলের গণ্ডি কোন রকমে ধাক্কে পাস করেছেন কিনা সন্দেহ! … যদিও লোক ঠকান বিদ্দ্যাতে মাস্টার ডিগ্রী করে ফেলেছেন অনেক আগেই, অনেক অল্প বয়েসেই! এঁদের একজন আবার বিলেত ফেরত ছবি দিয়ে advertisement ও দেন নিয়মিত একটি বাংলা খবরের কাগজে  … কিন্তু উনি জানেন না যে সাধারণ মানুষেরও পড়াশুনো জানা আছে অনেকটাই, তাই শুধু ১০ মিনিটে বর্তমান সমস্যার উপরে ভর করে কবচ আর নিম্নমানের পাথর দিয়ে সাময়িক কাজ হলেও (সেটাও যদি ঝড়ে হটাত বক মরে যায়!), আসল সমস্যার চিরস্থায়ী সমাধান কখনই করতে পারা যায় না।

আরও একটা দারুন ব্যাপার হল, এই মহান তান্ত্রিকের দল কখনই এক জাগায় থাকেন না এবং বসেন না, উনারা “ভীষণ রকম” ব্যাস্ত। আরে দাদা, উনারা তো ব্যাস্ত হবেনই, কারণ যদি ভুল করে কখনও কোন Party র নেতার অথবা নেতার চ্যালার কাজের জন্যে ভুল করে টাকা নিয়ে নেন তাহলে তো আর রক্ষ্যা নেই, কারণ উনি নিজেও জানেন যে উনি কিসসু কাজ করতে পারবেন না এবং কোন সমস্যার সমাধান করতে পারবেন না 28 ঘণ্টা কেন, আগামি ২৪ বছরেও পারবেন না। অতএব, আজ ব্যারাকপুর, কাল দমদম, পরশু বর্ধমান, আগামি মাসের ৫ তারিখ মালদা নিজের গা বাঁচাতে … তাও না হলে পগারপার হতে উনি যাবেন বেঙ্গালুরু, হাইদেরাবাদ, মুম্বাই, দিল্লী অথবা অন্য কোথাও …। কিন্তু কখনই কোন স্থায়ী আস্তানা নয়। … এই Strategy তে রথ দ্যাখাও হয়, আবার কলা ব্যাচাও হয়। ... মানে ঝামেলায় জর্জরিত public জানলো যে এই মহান তান্ত্রিকগন কতনা ব্যস্ত এবং কতনা চাহিদা এনাদের, আবার ঠ্যাঙ্গানি খাবার হাত থেকেও পালানোর বাবস্থা থাকল সবসময়

গত ৩-৪ বছর ধরে বারাকপুরের মানুষেরা জেনে গ্যাছেন যে “স্টিল” শব্দটার মানেই এইসব ভুয়োর আঁকড়া, আর যারা জানেন না তাঁরা একটু চোক কান খোলা রাখলেই বুজতে পারবেন। তবে নিজের রক্ত জল করা টাকা খরচের (পড়ুন “মার যাবার”) আগেই বুজতে পারলে ভাল।

যেমন আগেই আলোচনা করেছি যে এঁদের ভেতর দুইএকজন আবার তান্ত্রিক নন, তাঁরা হলেন স্পেশাল “প্রেততাত্ত্বিক” … বেশ নতুনত্ত্ব গাল ভরা নাম আর বেশ একটা “গা ছমছমে” ব্যাপারটা… তাইনা? … আর এই “গা ছমছমে” ব্যাপারটা সবাইকে বেশ আকৃষ্ট করে। তাই “সাধু সাবধান!” হন সময় থাকতেই, মানে আপনার পকেটের টাকা এই স্পেশাল “প্রেততাত্ত্বিক” কে দেবার আগে, কারণ এইএ কিন্তু বেশ “স্পেশাল”, কারণ এনার সঙ্গে ভগবানের বিশেষ যোগাযোগ নেই, কারণ ইনি “প্রেত” দেরকে নিয়ে daily “ছিনিমিনি” খ্যালেন, আর উনি যা বলেন সব “প্রেত” ও “পিশাচ” রা তাই করে। বিরাট ক্ষমতা এনার। ক্ষমতা বেশি… অতএব, বুঝলেন কিনা… তাই এনার দখিনাটাও সাধারণ তান্ত্রিক বাবাদের থেকে বেশ বেশি। তান্ত্রিক বাবারা যদিও বা আপনাকে আস্তে আস্তে জবাই করে (মানে ৫০০, ১০০০, ৫০০০, ১০০০ ইত্যাদি)… ইনি কিন্তু আপনাকে একবারেই জবাই করবেন, কোন আস্তে আস্তে নয়, মানে উনি আকবারে নিয়ে নেবেন ৩০০০০ – ১০০০০০+ । যদি আপনি চরম মূর্খের মতন দিয়েই দ্যান (মানে যদি জবাই হয়েই যান)… তাহলে উনার strategy হয় বিভিন্ন রকম ভাবে আপনাকে ঘোরাতে থাকা গোল গোল। যেমন, ভুতের ভয় দাখান উনার বাড়িতে দেকে নিয়ে, বিভিন্ন রকম illogical natural calamity র অজুহাত ধ্যাকন কাজ না হবার কারণ হিসেবে ইত্যাদি। তাতেও যদি আপনি না দমে যান ও আপনাকে উনি কাটাতে না পারেন, তাহলে শেষ অস্ত্র হিসেবে উনি আপনাকে না চেনার ভান করেন ফোন করলে (যদিও আপনার কাছ থেকে হয়ত টাকে নিয়েছেন মাত্র ২ দিন আগেই আবার!)… কিন্তু তাতেও যদি আপনি “অপমান হজম করেন” এবং কাজের result জানতে চান, তখন উনি গুন্ডা দিয়ে বল প্রয়োগ করেন যাতে আপনি আর না এগতে পারেন টাকা ফেরত চাইতে

আমাদের দেশে সব থেকে খারাপ দিক হল আপনি পুরোপুরি ঠকে গিয়েও এবং সব ঠগবাজি ধরে ফেলেও এইসব ঠগবাজের বিরুদ্ধ্যে কোন আইনগত পদক্ষেপ নিতে পারবেন না, কারণ আপনি নিজের থেকে যেচে এই সব ঠগ বাজদেরকে কোনরকম আইনগত তথ্য (Work & Service Legal Agreement) ছাড়াই আপনার রক্ত জল করা উপার্জিত কাড়ি কাড়ি টাকা দিয়েছেন, দেন এবং দিয়ে যাবেন এমন সমস্ত সমস্যার সমাধান করতে যেটা আপনি নিজে ছাড়া এবং স্বয়ং ভগবান ছাড়া কেউ সমাধান করতে কোনদিনও পারবেন না।

আপনি যদি জীবনের সমস্যার সমাধান করতে নাও পারেন, তবুও কোন অবস্থাতেই এই সব ভণ্ড তান্ত্রিক ও ভুয়ো প্রেততাত্ত্বিকদেরকে নিজের কষ্টার্জিত উপার্জন নিজের হাতে তুলে দিয়ে সর্বস্বান্ত হবার কোন যুক্তি নেই। কারণ আপনার চারিত্রিক দুর্বলাতার ভুলের মাশুল কোন ভাবেই আপনার পরিবারের অন্নদের দেওয়া উচিত নয়।

তাই আর দেরি না করে আজকেই এখনি শপথ নিনঃ

  • যে নিজেকে আর এই ভণ্ডদের বলির পাঁঠা বানাবেন না।

  • শপথ নিন যে ভগবান শ্রী রামকৃষ্ণের দেখান যুক্তিযুক্ত পথে নিজের সন্মান, সাহস ও আত্মবিশ্বাস নিয়ে চলবেন এবং স্বামী বিবেকানন্দের দেখানো প্রমাণিত পথে চলে নিজের জীবনকে নিজেই সঠিক পথে নিয়ে যাবেন।

  • শপথ করুন কোন ভণ্ড ব্যাক্তিকে আর প্রনাম করবেন না।

  • শপথ করুন যে নিজেকে সব থেকে বেশি ভালবাসবেন এবং মাথা উঁচু করে সাহসের সঙ্গে প্রতিদিন বাঁচবেন।

  • শপথ করুন নিজের জীবনের গতিপ্রকিতী আজকেই বুঝে নেবেন এবং তাঁর অপর ভিত্তি করে নিজের জীবনের হাল নিজেই শক্ত করে ধরবেন এবং চালাবেন। 

  • শপথ করুন নিজের রক্ত জল করা, এমনকি সহজ ভাবে পাওয়া একটি টাকাও এইসব ভণ্ডদের পেছনে নষ্ট করবেন না, বরং মন চাইলে মা কালীর, বাবা লোকনাথের, বাবা মহাদেবের অথবা যিনি আপনার আরাদ্ধ্য দেবতা তাঁর পূজা করবেন, মন দিয়ে তাঁর ধ্যান করবেন, তাঁকে একাগ্র চিত্তে ডাকবেন সবসময়। তিনি আপনাকে রক্ষ্যা করবেনই করবেন, কোন সন্দেহ নেই তাতে, এমনকি এই ঘোর কলিকালেও। 

এই মুহূর্তে আপনি সমস্যা জর্জরিত থাকলে ও আপনার মন দুর্বল থাকলে আপনার আমাদের কথাগুলো খুব একটা পছন্দ হবে না, কারণ আপনি এই মুহূর্তে একটা চটজলদি ম্যাজিকের মতন সমাধান চাইছেন আপনার সমস্যার। এবং ঠিক এই দুর্বল মনের কারণেই আপনি ভাবছেন যে আজকালকার ভণ্ড তান্ত্রিক, ভণ্ড অর্ধ শিক্ষিত বা অশিক্ষিত জ্যোতিষ বাবা অথবা মায়েরা, অথবা নতুন ঠগবাজ প্রেততাত্ত্বিক দাদা আপনার সমস্যার দ্রুত সমাধান ম্যাজিকের মতন করে দেবেন, যেটা কিনা সর্বশক্তিমান বাবা শিব অথবা মা কালী পারবেন না।

তার মানে, আপনি এতটাই দুর্বল ও বোকা বানিয়ে ফেলেছেন নিজেকে যে আপনি সমস্যায় পড়লেই ভগবান কে অর্থাৎ আপনার সৃষ্টিকর্তাকে অবিশ্বাস করেন, অথচ ঠগবাজ গোমূর্খ তান্ত্রিকদের বিশ্বাস করে নিজের মূল্যবান কাড়ি কাড়ি অর্থ হাতে তুলে দিয়ে আসেন ও নিজের আরও সর্বনাশ ডেকে আনেন।

যদি আমদের আলোচনা আপনার বাস্তবিক, সঠিক, যুগোপযোগী এবং যুক্তিযুক্ত মনে হয়, যদি আপনি সত্যি সত্যিই নিজের জীবন সম্পর্কে সঠিক বেদ নির্ভর বিজ্ঞ্যানভিত্তিক তথ্য জানতে চান তাহলে আর দেরি না করে আজই নিজেকে জানতে ইচ্ছা হলে, নিজের ভবিষ্যতের সঠিক “অতিরঞ্জিত না করা” সত্যি জানতে হলে নিজের জন্য একটি সম্পূর্ণ সত্যের ওপর নির্ভরশীল বিস্তারিত জিবনপঞ্জি তৈরি করান আমাদের Astrological Service নিয়ে, যার এখন দাম মাত্র ৫৫০ টাকা। (Actual Service Fee Rs.1200/-)

আপনার বিস্তারিত জিবনপঞ্জি Order করতে এই নীল লেখাটির উপর টিপুন (click here), এবং পরবর্তী page এ payment করুন।

এবার কি বুঝতে পারছেন আপনার দুর্ভাগ্যের জন্য কে দায়ী? শুধুই কি এইসব ভণ্ডরা, নাকি আপনি নিজেও?

এখনকার তান্ত্রিকদের সকলেই আবার স্বর্ণপদক প্রাপ্ত ..! কে যে সেই পদক দেবার সময় সত্যিকারে উপন্সথীত ছিল কেউ জানে না, আর যেকোনো একটু সাধারণ বুদ্ধির মানুষই জানেন যে বর্তমান সময়ে “ছবির” কোন দাম নেই, কারণ আজকাল অলিতে গলিতে বাচ্চারাও Computer Software (Photoshop) দিয়ে খুব সহজেই “স্বর্ণপদক প্রাপ্তি অনুষ্ঠান” এর ছবি যে কাউকে তাঁর ভেতরে রেখে তৈরি করে দিতে পারে … কেউ কেউ আবার হাস্যকর ভাবে অদ্ভুত অদ্ভুত দেশের প্রধান মন্ত্রীর দ্বারা পুরস্কারপ্রাপ্ত … কয়েকজন দাবিও করেন যে তাঁরা বিদেশেও ছিলেন অনেকদিন অথবা প্রায়ই যান … ভালকথা … আমাদের অনুরোধ যে এরপর যখন এই মহান তান্ত্রিকদের কাছে যাবেন তাদেরকে জিজ্ঞেস করবেন তাঁরা কি ভাবে বিদেশ গিয়েছিলেন অথবা যান “প্রায়ই”? এবং তাঁরা কোথায় থাকেন সেখানে, সঠিক পিনকোড জানতে চাইবেন, এবং জিজ্ঞেস করবেন যে সেখানে খুঁটিনাটি কি কি জানেন বা দেখেছেন… ? দেখবেন হয় আমতা আমতা করবে, নয়ত smartly মিথ্যা বলবে এবং উলটোপালটা information দেবে যেটা আপনি অতি সহজেই যে কোন চেনাশোনা ব্যক্তির কাছে verify করতে পারবেন যিনি বিদেশ যান অথবা যে কোন information আজকাল সহজেই Online Internet এ verify করা যায়

অনেকেই আবার অনেক গায়ক নায়ক মন্ত্রীর বিশেষ বন্ধু … এবং তাঁরা নাকি সেই তান্ত্রিকের দৈববলেই এবং astrological advice এই সব গায়ক নায়ক মন্ত্রী হতে পেরেছেন … সব যদি ঠিক ধরেও নেওয়া যায় তর্কের খাতিরে, তাও আপনার রক্ত জল করা টাকা উনাকে / উনাদেরকে দেবার আগে প্রশ্ন থেকে যায় যে উনি আজ পর্যন্ত কোন কোন সাধারণ মানুষকে তাদের সমস্যা থেকে সত্যি সত্যি উদ্ধার করতে পেরেছেন? … আর আদৌ স্থায়ী ভাবে পেরেছেন, নাকি সায়মিক কয়েকদিনের শান্তি দিয়ে চলেছেন, যেটা আজকাল কয়েকজন পারেন একটি সহজ South Indian Astrological পদ্ধতির (কৃষ্ণমূর্তি) মাধ্যমে যার নাম Hora, এবং এর সাহায্যে আপনার বর্তমান সমস্যা বলা জেতে পারে সামান্য এবং সাময়িক প্রতিকার করা যায়, কিন্তু কখনই স্থায়ী প্রতিকার হয়না, কারণ এই পদ্ধতিতে জন্মকালীন চন্দ্রের details এবং অন্য গ্রহদের ও তাদের অধিপতি সম্পর্কে details  ১০-১৫ মিনিটে বলা সম্ভব হয়না … তাই প্রতিকারও করা যায়না, এবং জনপ্রিয় তান্ত্রিক বাবুরা সমধান করতেও পারেন না … আর আপনি সমস্থ টাকা দিয়ে সর্বস্বান্ত হয়ে যান ও কয়েকবার গিয়ে আর যান না তান্ত্রিক বাবুর কাছে … তাতে উনার কিছু এসে যায়না, কারণ ততক্ষণে উনার আপনার কাছে থেকে যা টাকা পাবার পাওয়া হয়ে গিয়েছে, আর আপনি বেশি কিছু বললে উনার ভারা করা গুণ্ডা আপনার বাবস্থা করে দেবার জন্য রেডি হয়ে আছে। … আর আপনি যে তিমিরে যা সমস্যা নিয়ে তান্ত্রিক বাবুদের কাছে গিয়েছিলেন তাতো কাটবেই না, উল্টে আপনার গাদা খাণেক টাকা নষ্ট হয়ে গেছে ও আবার যাবে যদি আবার অন্য আর এক ভণ্ড তান্ত্রিক অথবা জ্যোতিষ বাবার কাছে যান …“যিনি আবার স্বর্ণপদক প্রাপ্ত পণ্ডিত”… যা হাস্যকর হলেও অমোঘ সত্য।

এদের কথা যদি তর্কের খাতিরে মেনেও নেওয়া যায়, তবুও একটা কথা কিছুতেই মেলে না হিসেবে যে, এই সব তান্ত্রিকদের একজন যদি একদিনে ১০ টি লোকের সমস্যা মেটানোর চেষ্টা করে তাহলে তাদেরকে প্রতিদিন কম পক্ষে ৭৬০০০ বার X ১০ = ৭,৬০,০০০ বার জপ করতে হবে… এইখানেই শেষ নয়, ওই তান্ত্রিককে এই কাজ করতে হবে একটানা কমপক্ষে একমাস … প্রতিদিন কোনরকম ফাকি না দিয়ে … এবং একিসঙ্গে ব্রহ্মচর্য পালন করতে হবে একটানা যতদিন কবচ তৈরি প্রক্রিয়া চলবে।

অতএব, খুব সহজেই সাধারণ বুদ্ধিতেই বোঝা যায় যে কোন একজন প্রকৃত তান্ত্রিকের পক্ষে কোনভাবেই ১ মাসে এত জনের উপকার করা সম্ভব নয়, অর্থাৎ এতজনের জন্য সঠিক পদ্ধতিতে তাবিচ-কবচ বানান সম্ভব নয়। যদি বানাতেও চেষ্টা করে, তা উপকারের থেকে অপকারই বেশি হবে যার জন্য বানাবে… কারণ ভগবান বিচার করেন না দোষ কার, তিনি বিচার করেন যে তাবিচ-কবচ যেটি বানান হয়েছে সেটি সঠিক ভাবে বানান হয়েছে কিনা? … যদি না হয়ে থাকে তাহলে তিনি যে বানিয়েছে তাকে এবং যে ধারন করছে তাকেও সমান সাস্থি দেন… এবং এটি যুগ যুগ ধরে প্রমানিত সত্য, আমরা মানি চাই না মানি।

আর একটি খেয়াল করবার বিষয় হল আজকের সব তান্ত্রিকের ৯৫ শতাংশের বয়েস ৫০ ই পেরোয়নি … একবার নিজের বুদ্ধি প্রয়োগ করে ভাবুন তো … সত্যি কি সম্ভব এই ভাবে তান্ত্রিক হওয়া? … অতি সাধারণ M.A. MSc. M.Tech. MD ইত্যাদি পড়াশুনা সঠিক ভাবে একবারে শেষ করতেই বেশীরভাগ মানুষ পারেনা, সেখানে সর্বশক্তিময় ঈশ্বরকে জানা কি এতই সহজ? … আপনি কি সত্যি এত নির্বোধ যে এইটুকু বোঝেন না? … আপনি যদি জীবনের দুর্বল মুহূর্তে এই ভাবে বোকা হয়ে যান একজন অর্ধসত্য বলা লোকের সাধারণ বুদ্ধির কাছে, তাহলে আপনার মেয়ে অথবা ছেলে কি করে জীবনে দাঁড়াবে একজন মানুষের মত মানুষ হয়ে, আপনি কি চান না যে আপনার সন্তানের at least সাধারণ বুদ্দিটুকু থাকুক?

তাই, আজই, নিজের সঠিক ভবিষ্যৎ জানুন, না ঠকে পরিবারের সঙ্গে সুখে বাঁচুন।

আপনার মূল্যবান সময়ের জন্য ধন্যবাদ।

যদি আপনি নিজের এই রকম কোন বাস্তব অভিজ্ঞ্যতার কথা সবাইকে জানাতে চান, তাহলে এখানে টিপুন, এবং আপনার নিজের এই ধরনের কোন বাস্তব অভিজ্ঞ্যতার কথা সময় ও তারিখ দিয়ে লিখে যানান। আপনার লেখা আমরা ছাপালে আপনি পুরস্কৃত হবেন এবং আপনার দ্বিতীয় Order এ বিস্তারিত ৬০ বৎসরের ভাজ্ঞ্যফল মাত্র ২৫০ টাকায় পাবেন। তবে মনে রাখবেন, আপনার লেখা যেন সঠিক বাস্তব ভিত্তিক হয় এবং সঠিক বাস্তব তথ্য থাকে, নচেৎ লেখাটি গ্রহণ করা উচিৎ বলে আমরা মনে করব না। কারণ আমরা মানুষকে বাস্তব সম্পর্কে জানাতে চাই, গল্প নয়।

আপনার ও আপনার প্রিয় সকলের প্রভুত উন্নতি, সুস্বাস্থ্য, আরোগ্য, সুখী দীর্ঘায়ু কামনা করি।

Free Horoscope today Jyotish Astrology Horoscope matchmaking Shaadi Gun milan, Order your Astro Combo Reports, include free horoscope today day to day detailed analysis for full life horoscope prediction with Gem remedy and Numerology remedial suggestions for you. Details day to day prediction for you with full Shani sare sati (Shani sade sati) malfic effect analysis and correct Shani sade sati remedy prediction for you for your full life time. Know your very specific minute details of your future life with correct day, date, year and time analysis and remedy predictions and suggestions so that you and your family get most out of your full life astrology, numerology analysis, astrology horoscope prediction and remedy tips and tricks (few are very cheap free remedy as applicable for you and your family members). So do not delay, ORDER ASTRO COMBO REPORTS Today for you and your family members for just Rs.550 (INR550.00) only NOW! Know your future CORRECT life details (good and bad) and take necessary correct actions TODAY to take CONTROL of your future LIFE and confidently BE HAPPY with your family with money, happiness, prosperity. BEST OF LUCK

free horoscope today free horoscope matchmaking astrology combo reports pack bengali shaadi zodiac signs daily horoscope prediction free shani sade sati remedy Shani sare sati cheap easy remedy remedies auspicious muhurtam muhurta inauspicious muhurtam free today time

best astrologers best astrologer best astrologers in kolkata naihati best bengali tantrik sri tapan shastri sri subhash shastri badu maharaj numerilogy The Super Horoscope concentrates on the minutest aspects of life, bringing your entire life to you in a nutshell. The report will highlight the important events of your life and the course they take. Describing your general personality, appearance and well being, the LifeSign Super Horoscope report will also highlight factors such as wealth, education, career, family members, marriage and obstacles etc. The 'parihara' or remedial actions suggested in the report will help you set right the course of your life.